1. admin@dainikprothomnews.com : admin :
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:০৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনামঃ
সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশের অভিযানে ৫ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক সাতক্ষীরায় শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় আন্তজার্তিক মাতৃভাষা ও জাতীয় শহীদ দিবস পালিত সাতক্ষীরা জোন ট্যুরিস্ট পুলিশের আয়োজনে সুন্দরবন দিবস পালন সাতক্ষীরায় ডিবি পুলিশের অভিযানে ৫১৫ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আটক ১ সাতক্ষীরায় বিশ্ব ক্যান্সার দিবস ২০২৪ শীর্ষক র‌্যালি ও আলোচনা সভা সাতক্ষীরায় ডিবি পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৪০ বোতল ফেন্সিডিলসহ আটক ১ বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসক-নার্স নেওয়ার ঘোষণা সৌদির শীতের রাতে সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায় হঠাৎ বন্যা! মূল্যবৃদ্ধি ও কালো টাকার বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে সিভিল ডিফেন্স ও ভলান্টিয়ার বাড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সাতক্ষীরায় সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলে দশ মাসে ৩’শ ৭৪টি মোবাইল ও ২ লক্ষাধিক টাকা উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত : বুধবার, ১৬ মার্চ, ২০২২
  • ২০২ জন দেখেছে

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ-ই দেশে প্রথম হারানো মোবাইল খুঁজে মালিকের কাছে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নেয়। যে উদ্যোগ দেখে ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলা পুলিশ এ কার্যকক্রম শুরু করেছে।

বুধবার (১৬ মার্চ) সকাল ১১ টায় সাতক্ষীরা পুলিশ লাইন্স ড্রিলসেটে জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল কর্তৃক হারানো ৫৫টি মোবাইল উদ্ধার করে প্রকৃত মালিকদের নিকট হস্তান্তর কালে এসব কথা বলেন, সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান।

তিনি বলেন মানুষকে সতর্ক করতে জেলা পুলিশ এ উদ্যোগ নিয়েছে। আইন অনুযায়ী মোবাইল ফোন উদ্ধার করতে গেলে তার মালিককে মামলা করতে হবে। পুলিশ মোবাইল ফোন উদ্ধার করে মোবাইল ফোনটি কোর্টে প্রেরণ করবে। মালিক কোর্ট থেকে মোবাইল ফোনটি ফিরিয়ে নেবে। এই প্রকৃয়ার মাধ্যমে একটি ফোন ফিরে পেতে অনেক সময়ের লাগে। তাই সতর্কতার জন্য জেলা পুলিশ এমন উদ্যোগ নিয়েছে।

সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল মোবাইল ফোন উদ্ধারের পাশাপাশি বিকাশে প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেওয়া টাকা উদ্ধার, ফেসবুকে প্রতারণাসহ সাইবার ক্রাইম নিয়ে কাজ করছে।

তিনি আরও বলেন, জেলা পুলিশ সার্বক্ষণিক আন্তরিক হয়ে জনগণকে সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। মোবাইল উদ্ধারের পর কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত মালিকদের নিকট হস্তান্তর করা হয়। মোবাইল মালিকরা হারিয়ে যাওয়া মোবাইল ফেরত পেয়ে খুশি। এতে জনগণের মাঝে পুলিশের প্রতি আস্থা দিন দিন বাড়ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে উদ্ধার হওয়া ৫৫টি মোবাইল ও ৫১ হাজার টাকা প্রকৃত মালিকদের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সজিব খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলের প্রধান ইকবাল হোসেন, জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার কর্মকর্তা মিজানুর রহমানসহ মোবাইল মালিকরা উপস্থিত ছিলেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলের প্রধান ইকবাল হোসেন জানান, গত এপ্রিল মাস থেকে আমরা সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলের কার্যক্রম শুরু করি। ইতোমধ্যে পুলিশ ডিপার্টমেন্ট থেকে আমরা অনেক সাড়া পেয়েছি। গত ১০ মাসে মোট ১ হাজার ৫৫ টি জিডির বিপরিতে ৩’শ ৭৪টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। যার অনুমানিক মূল্য ১ কোটি টাকা। অনেক মোবাইল ফোন উদ্ধার চলমান রয়েছে।

এছাড়া বিকাশের মাধ্যমে ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া ২ লক্ষাধিক টাকা উদ্ধার করে প্রকৃত মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ দেশে প্রথম হারানো মোবাইল খুঁজে মালিকের কাছে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নেয়। যে উদ্যোগ দেখে ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলা পুলিশ এ কার্যকক্রম শুরু করেছে।

বুধবার (১৬ মার্চ) সকাল ১১ টায় সাতক্ষীরা পুলিশ লাইন্স ড্রিলসেটে জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল কর্তৃক হারানো ৫৫টি মোবাইল উদ্ধার করে প্রকৃত মালিকদের নিকট হস্তান্তর কালে এসব কথা বলেন, সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান।

তিনি বলেন মানুষকে সতর্ক করতে জেলা পুলিশ এ উদ্যোগ নিয়েছে। আইন অনুযায়ী মোবাইল ফোন উদ্ধার করতে গেলে তার মালিককে মামলা করতে হবে। পুলিশ মোবাইল ফোন উদ্ধার করে মোবাইল ফোনটি কোর্টে প্রেরণ করবে। মালিক কোর্ট থেকে মোবাইল ফোনটি ফিরিয়ে নেবে। এই প্রকৃয়ার মাধ্যমে একটি ফোন ফিরে পেতে অনেক সময়ের লাগে। তাই সতর্কতার জন্য জেলা পুলিশ এমন উদ্যোগ নিয়েছে।

সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল মোবাইল ফোন উদ্ধারের পাশাপাশি বিকাশে প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেওয়া টাকা উদ্ধার, ফেসবুকে প্রতারণাসহ সাইবার ক্রাইম নিয়ে কাজ করছে।

তিনি আরও বলেন, জেলা পুলিশ সার্বক্ষণিক আন্তরিক হয়ে জনগণকে সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। মোবাইল উদ্ধারের পর কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত মালিকদের নিকট হস্তান্তর করা হয়। মোবাইল মালিকরা হারিয়ে যাওয়া মোবাইল ফেরত পেয়ে খুশি। এতে জনগণের মাঝে পুলিশের প্রতি আস্থা দিন দিন বাড়ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে উদ্ধার হওয়া ৫৫টি মোবাইল ও ৫১ হাজার টাকা প্রকৃত মালিকদের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সজিব খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলের প্রধান ইকবাল হোসেন, জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার কর্মকর্তা মিজানুর রহমানসহ মোবাইল মালিকরা উপস্থিত ছিলেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলের প্রধান ইকবাল হোসেন জানান, গত এপ্রিল মাস থেকে আমরা সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলের কার্যক্রম শুরু করি। ইতোমধ্যে পুলিশ ডিপার্টমেন্ট থেকে আমরা অনেক সাড়া পেয়েছি। গত ১০ মাসে মোট ১ হাজার ৫৫ টি জিডির বিপরিতে ৩’শ ৭৪টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। যার অনুমানিক মূল্য ১ কোটি টাকা। অনেক মোবাইল ফোন উদ্ধার চলমান রয়েছে।

এছাড়া বিকাশের মাধ্যমে ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া ২ লক্ষাধিক টাকা উদ্ধার করে প্রকৃত মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সংবাদ টি শেয়ার করে সহযোগীতা করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2021-2024 দৈনিক প্রথম নিউজ
প্রযুক্তি সহায়তায় রি হোস্ট বিডি