1. admin@dainikprothomnews.com : admin :
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৯:২০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনামঃ
সাতক্ষীরার তালায় ধানবোঝাই ট্রাক উল্টে দুইজন নিহত সাতক্ষীরায় মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী, দুর্নীতিগস্থ ও সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টিকারীদের প্রশ্রয় দেওয়া হবে না সাতক্ষীরায় চারটি অস্ত্র, ২৯ রাউন্ড গুলি ও তিনটি ম্যাগাজিন জব্দ করেছে র‌্যাব-৬ সাতক্ষীরায় তেলজাতীয় ফসল উৎপাদনে ৫ কৃষক পুরস্কৃত সাতক্ষীরায় কোন আম কবে পাড়া যাবে, জানালো জেলা প্রশাসন সাতক্ষীরার কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে স্ত্রীর আত্মহত্যা! বাঁশেরবাদা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন সাতক্ষীরার আশাশুনিতে এসএসসি ২০০৮ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত আজ থেকে ব্যাংক-বীমা-অফিস-আদালত খুলছে ইরানের দাবি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনেছে ক্ষেপণাস্ত্র, লুকাতে চাচ্ছে ইসরায়েল

সাতক্ষীরায় তথ্য গোপন ও হিসাব বিবরণী বর্হিভূত সম্পত্তি ভোগ দখরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

প্রস বিজ্ঞপ্তি
  • প্রকাশিত : সোমবার, ১৪ মার্চ, ২০২২
  • ১৮১ জন দেখেছে

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের দক্ষিন শ্রীপুর ইউনিয়নের টোনা গ্রামের শিবপদ সরকার কর্তৃক তথ্য গোপন ও হিসাব বিবরণী বর্হিভূত সম্পত্তি ভূমি বিভাগের কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে তা দখল রাখার প্রতিবাদে ও তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আব্দুল মেতালেব মিলনায়তনে উক্ত সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন, বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক অইন বিষয়ক সম্পাদক ইউনুছ আলী মোড়ল।

তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রনালয়ের পি.ও ৯৬/১৯৭২ এবং ৯৮/১৯৭২ পি.ও ১০/১৯৮৪ অধ্যদেশ মোতাবেক কালিগঞ্জ উপজেলার দক্ষিন শ্রীপুর ইউনিয়নের টোনা গ্রামের মৃত মাদার চন্দ্র সরদারের ছেলে শিবপদ সরকার নিজে ও তার স্ত্রী এবং চার সন্তানের নামে গত ১৪ জুলাই ২০১১ইং তারিখে ৯৬/১৯৭২-৭৪৮ (যুক্ত) স্বারকে ০৩/২০১১ নং হিসাব দাখিল করে ১৬.৫৩৫ একর জমির হিসাব দাখিল করে।

কিন্তু ৫টি মৌজায় ৩৯.১৮৬১ একর জমি আছে। আমি তার হিসাব বিবরনী অপেক্ষা ২৩.০০০ একর জমি অতিরিক্ত থাকায় উহার বিরুদ্ধে উপজেলা সহকারী কমিশনার (রাজস্ব) কালিগঞ্জ এর কাছে গত ১৫ মার্চ ২০২০ তারিখে উক্ত অতিরিক্ত সম্পত্তি তার নাম হইতে কর্তন পূর্বক অধিগ্রহন করার জন্য আবেদন করি।

উপজেলা সহকারী কমিশনার মিস কেস নং না দিয়ে হাতে হাতে সরাসরি চাঁম্পাফুল ইউনিয়ন ভূমি অফিস, কুশলিয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিস ও জয়পত্রকাটি ভূমি অফিসে প্রতিবেদন প্রেরনের জন্য পাঠায়। বর্ণিত ভূমি অফিসারের ম্যানেজ করে শিবপদ সরকার তড়িঘড়ি করে একটি প্রতিবেদন প্রস্তুত করে যাহা আমাকে নোটিশ দিয়ে না জানিয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (রাজস্ব) কালিগঞ্জকে দাখিল করে।

আমি উক্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে আপত্তি প্রদান করি গত ১০ জানুয়ারি ২০২১ ইং তারিখে এবং উহা শুনানির অপেক্ষায় থাকে। ইতিমধ্যে শিবপদ সরকারের পুত্র মিঠুন সরকার নিজ নামীয় সম্পত্তি পৃথক খতিয়ান করার জন্য ২টি মিসকেস যথাক্রমে ৩২২১/২০-২১, ৮৫/২০-২১ যার নং যথাক্রমে ২৪৬৯৯৮৬, ২৪৭২৬৯৪। উক্ত মিসকেস ২টি বন্ধ রেখে আমি দাখিলী আবেদপত্রের শুনানীর জন্য গত ২৫ আগস্ট ২২১ইং তারিখে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কালিগঞ্জ বরাবর আবেদন করি। আমার আবেদনপত্র মতে গত ইং ৭ সেপ্টেম্বর ২১ তারিখে শুনানীর দিন ধার্য করে আমাকে নোটিশ দেয়। আমি যথাসময়ে শুনানীতে অংশ গ্রহন করি কিন্তু আমার হিসাব বিবরনী বহির্ভূত সম্পত্তি কর্তন করার জন্য দাখিলা আবেদন পত্রটি শুনানী করেননি এমনকি মিসকেস রুজু করেননি।
আমি মনে করি যে, উপজেলা সহকারী কমিশনার কোন অসাধু কর্মকর্তার সাথে সংযুক্ত হওয়ায় হিসাব বিবরনী বহিভূত সম্পত্তির মালিকেরা অনিয়মে বছরের পর বছর সম্পত্তি ভোগ করে সরকার ক্ষতিগ্রস্থ করছে। শিবপদ সরকারের নামে চান্দুলিয়া মৌজায় কোন অদৃশ্য জালিয়াতি কাগজ প্রস্তুতকারী ভূমিদস্থ্য জড়িত আছে বলে মনেকরি। সেই সব ব্যক্তি ভূমি বিভাগের নীচুতলা থেকে উপরতলা পর্যন্ত নিজেদের হিসাব বিবরনী বহির্ভূত জালিয়াতি ভাবে অর্জিত সম্পত্তি নিশ্চিত নির্বিঘ্নে ভোগ করার জন্য চেষ্টার করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, শিবপদ সরকারের মোট সম্পত্তির পরিমান ৩৯.১৮৬১ একরের চেয়ে ২৩ একর বেশী সম্পত্তি হিসাব বিবরনী বহির্ভূত ভাবে দখলে রেখেছেন। সংবাদ সম্মেলন থেকে তিনি এ সময় গোপন তদন্তের মাধ্যমে শিবপদ সরকারের হিসাব বিবরনী বহিভূত সম্পত্তি কর্তন পৃথক অধিগ্রগন এবং এর সাথে সংযুক্ত জড়িতদের সম্পত্তি অনুরুপ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য ভূমি বিভাগের কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।

 

কালিগঞ্জের দক্ষিন শ্রীপুর ইউনিয়নের টোনা গ্রামের শিবপদ সরকার কর্তৃক তথ্য গোপন ও হিসাব বিবরণী বর্হিভূত সম্পত্তি ভূমি বিভাগের কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে তা দখল রাখার প্রতিবাদে ও তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আব্দুল মেতালেব মিলনায়তনে উক্ত সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন, বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক অইন বিষয়ক সম্পাদক ইউনুছ আলী মোড়ল।

তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রনালয়ের পি.ও ৯৬/১৯৭২ এবং ৯৮/১৯৭২ পি.ও ১০/১৯৮৪ অধ্যদেশ মোতাবেক কালিগঞ্জ উপজেলার দক্ষিন শ্রীপুর ইউনিয়নের টোনা গ্রামের মৃত মাদার চন্দ্র সরদারের ছেলে শিবপদ সরকার নিজে ও তার স্ত্রী এবং চার সন্তানের নামে গত ১৪ জুলাই ২০১১ইং তারিখে ৯৬/১৯৭২-৭৪৮ (যুক্ত) স্বারকে ০৩/২০১১ নং হিসাব দাখিল করে ১৬.৫৩৫ একর জমির হিসাব দাখিল করে।

কিন্তু ৫টি মৌজায় ৩৯.১৮৬১ একর জমি আছে। আমি তার হিসাব বিবরনী অপেক্ষা ২৩.০০০ একর জমি অতিরিক্ত থাকায় উহার বিরুদ্ধে উপজেলা সহকারী কমিশনার (রাজস্ব) কালিগঞ্জ এর কাছে গত ১৫ মার্চ ২০২০ তারিখে উক্ত অতিরিক্ত সম্পত্তি তার নাম হইতে কর্তন পূর্বক অধিগ্রহন করার জন্য আবেদন করি।

উপজেলা সহকারী কমিশনার মিস কেস নং না দিয়ে হাতে হাতে সরাসরি চাঁম্পাফুল ইউনিয়ন ভূমি অফিস, কুশলিয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিস ও জয়পত্রকাটি ভূমি অফিসে প্রতিবেদন প্রেরনের জন্য পাঠায়। বর্ণিত ভূমি অফিসারের ম্যানেজ করে শিবপদ সরকার তড়িঘড়ি করে একটি প্রতিবেদন প্রস্তুত করে যাহা আমাকে নোটিশ দিয়ে না জানিয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (রাজস্ব) কালিগঞ্জকে দাখিল করে।

আমি উক্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে আপত্তি প্রদান করি গত ১০ জানুয়ারি ২০২১ ইং তারিখে এবং উহা শুনানির অপেক্ষায় থাকে। ইতিমধ্যে শিবপদ সরকারের পুত্র মিঠুন সরকার নিজ নামীয় সম্পত্তি পৃথক খতিয়ান করার জন্য ২টি মিসকেস যথাক্রমে ৩২২১/২০-২১, ৮৫/২০-২১ যার নং যথাক্রমে ২৪৬৯৯৮৬, ২৪৭২৬৯৪। উক্ত মিসকেস ২টি বন্ধ রেখে আমি দাখিলী আবেদপত্রের শুনানীর জন্য গত ২৫ আগস্ট ২২১ইং তারিখে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কালিগঞ্জ বরাবর আবেদন করি। আমার আবেদনপত্র মতে গত ইং ৭ সেপ্টেম্বর ২১ তারিখে শুনানীর দিন ধার্য করে আমাকে নোটিশ দেয়। আমি যথাসময়ে শুনানীতে অংশ গ্রহন করি কিন্তু আমার হিসাব বিবরনী বহির্ভূত সম্পত্তি কর্তন করার জন্য দাখিলা আবেদন পত্রটি শুনানী করেননি এমনকি মিসকেস রুজু করেননি।

আমি মনে করি যে, উপজেলা সহকারী কমিশনার কোন অসাধু কর্মকর্তার সাথে সংযুক্ত হওয়ায় হিসাব বিবরনী বহিভূত সম্পত্তির মালিকেরা অনিয়মে বছরের পর বছর সম্পত্তি ভোগ করে সরকার ক্ষতিগ্রস্থ করছে। শিবপদ সরকারের নামে চান্দুলিয়া মৌজায় কোন অদৃশ্য জালিয়াতি কাগজ প্রস্তুতকারী ভূমিদস্থ্য জড়িত আছে বলে মনেকরি। সেই সব ব্যক্তি ভূমি বিভাগের নীচুতলা থেকে উপরতলা পর্যন্ত নিজেদের হিসাব বিবরনী বহির্ভূত জালিয়াতি ভাবে অর্জিত সম্পত্তি নিশ্চিত নির্বিঘ্নে ভোগ করার জন্য চেষ্টার করে যাচ্ছে।

সংবাদ টি শেয়ার করে সহযোগীতা করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2021-2024 দৈনিক প্রথম নিউজ
প্রযুক্তি সহায়তায় রি হোস্ট বিডি