1. admin@dainikprothomnews.com : admin :
শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৭:৪১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনামঃ
সাতক্ষীরার তালায় ধানবোঝাই ট্রাক উল্টে দুইজন নিহত সাতক্ষীরায় মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী, দুর্নীতিগস্থ ও সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টিকারীদের প্রশ্রয় দেওয়া হবে না সাতক্ষীরায় চারটি অস্ত্র, ২৯ রাউন্ড গুলি ও তিনটি ম্যাগাজিন জব্দ করেছে র‌্যাব-৬ সাতক্ষীরায় তেলজাতীয় ফসল উৎপাদনে ৫ কৃষক পুরস্কৃত সাতক্ষীরায় কোন আম কবে পাড়া যাবে, জানালো জেলা প্রশাসন সাতক্ষীরার কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে স্ত্রীর আত্মহত্যা! বাঁশেরবাদা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন সাতক্ষীরার আশাশুনিতে এসএসসি ২০০৮ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত আজ থেকে ব্যাংক-বীমা-অফিস-আদালত খুলছে ইরানের দাবি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনেছে ক্ষেপণাস্ত্র, লুকাতে চাচ্ছে ইসরায়েল

৪০ দিন জামাতে প্রার্থনা করলে কি লাভ?

Reporter Name
  • প্রকাশিত : শনিবার, ২ অক্টোবর, ২০২১
  • ২৩২ জন দেখেছে

ধর্ম ডেস্কঃ
এটি প্রায়শই শিরোনাম হয় যে শিশু, কিশোর -কিশোরী এবং যুবকরা পরপর ৪০দিন জামাতে প্রার্থনা করার পরে মূল্যবান পুরষ্কার পায়। পরপর ৪০ দিন জামাতে নামাজ আদায় করার অন্য কোন সুবিধা আছে কি? হাদিসের দিক নির্দেশনা কি?

যদিও এই ঘোষণা মসজিদ কমিটি বা মহল্লার লোকেরা ইসলামের নির্দেশনা অনুযায়ী করেছে কিনা বলা সম্ভব নয়, তবে ৪০ দিন জামাতে নামাজ আদায় করা বিশেষ গুণ এবং মর্যাদার বিষয়। যা একজন বিশ্বাসী মুসলমানের জন্য অনেক কিছু অর্জন করা। হাদিসে, ৪০ দিন জামাতে নামাজ পড়ার সুন্নাত কাল ঘোষণা করা হয়েছে। আরে, এটি প্রার্থনার জন্য দুটি বিশেষ পুরস্কার ঘোষণা করেছে। তারপর-

আনাস ইবনে মালিক (রাদিয়াল্লাহু আনহু) বর্ণনা করেন যে, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি প্রথম তাকবীর (একটানা) দিয়ে ৪০ দিন জামাতে নামাজ আদায় করবে, আল্লাহ তাকে দুটি পুরস্কার দেবেন। । তারপর-
১. জাহান্নাম থেকে মুক্তি।
২. মুনাফিকদের তালিকা থেকে তার নাম বাদ দিন। (তিরমিযী)

হাদিস অনুযায়ী একজন মুমিনের জন্য এর চেয়ে বড় আশীর্বাদ ও পুরস্কার আর কি হতে পারে? কারণ একজন ব্যক্তির জাহান্নাম থেকে মুক্তি মানে সে জান্নাতে।

এবং সর্বকালের সবচেয়ে বড় বিশ্বাসঘাতকতা বা অবিচার এখনই ঘটছে – কপটতা। এই কপটতা থেকে মুক্ত থাকাও একটি বড় আশীর্বাদ। মুনাফিকের শাস্তি স্পষ্টভাবে কুরআনে ঘোষণা করা হয়েছে। যা হবে ভয়াবহ। মহান আল্লাহ বলেন-
মুনাফিকরা আগুনের সর্বনিম্ন উপলব্ধিতে রয়েছে এবং তারা তাদের সাহায্যকারীদের কাছে ফিরে আসে না।

اِنَّ الۡمُنٰفِقِیۡنَ فِی الدَّرۡکِ الۡاَسۡفَلِ مِنَ النَّارِ ۚ وَ لَنۡ تَجِدَ لَهُمۡ نَصِیۡرًا
‘নিশ্চয়ই মুনাফিকরা জাহান্নামের সর্বনিম্ন স্তরে থাকবে। এবং আপনি তাদের জন্য কোন সাহায্যকারী পাবেন না। (সুরা নিসা: ১৪৫)

হাদিস অনুসারে, প্রথম তাকবীরের মাধ্যমে, উল্লেখিত দুটি পুরস্কার পরপর ৪০ দিন জামাতে নামাজ আদায়ের সহজ সময়ের মাধ্যমে পাওয়া সম্ভব।

অতএব, একজন বিশ্বাসী মুসলমানের উচিত নিয়মিত জামাতে নামাজ আদায় করা। নিয়মিত জামাতে নামাজ পড়া এবং জাহান্নাম থেকে মুক্তি পাওয়া সহ ভণ্ডামির মতো ভয়ঙ্কর অপরাধ থেকে মুক্তি পাওয়া। হাদিস অনুসরণ করে কোরানে ঘোষিত শাস্তি থেকে বেঁচে থাকা। সর্বোপরি, জান্নাত লাভের জন্য তাকবীর উলয়া সহ জামাতে নামাজ আদায় করা।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে প্রথম তাকবীর দিয়ে জামাতে নামাজ আদায় করার তাওফিক দান করুন। হাদিসে ঘোষিত পুরস্কার পেয়ে আপনার দুনিয়া ও আখেরাতে আশীর্বাদ করার তাওফিক দান করুন। আমীন।

সংবাদ টি শেয়ার করে সহযোগীতা করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2021-2024 দৈনিক প্রথম নিউজ
প্রযুক্তি সহায়তায় রি হোস্ট বিডি